Friday , September 18 2020

লেবাননের পর এবার সংযুক্ত আরব আমিরাতে ভ’য়া’ব’হ আ’গু’ন

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ভ;য়াবহ বি;স্ফো’র’ণে কেঁ;পে উঠেছিল গত ৪ আগষ্ট। আর তাতে মা;রা গিয়েছে শতাধিক মানুষ। এখনো আ;হত হাজার হাজার।

লেবাননের রে;শ না কাটতেই এবার আ;গু’নের সা;ক্ষী থাকল মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত।

৫ আগস্ট বুধবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের সময় সন্ধ্যে সাড়ে ৬ টার দিকে আ;গু’ন লাগে আজমান মার্কেটে। খবর পেয়ে ঘ;টনাস্থলে পৌঁছেছে ফা;য়া’র সা’র্ভিস।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের জনপ্রিয় পত্রিকা খলিজ টাইমস সূত্রে জানা গেছে, আ;গু’ন লে’গেছে আজমান মার্কেটে ফল ও সবজির বাজারে। দা;উ দা;উ করে জ্ব;ল’তে থাকে আজমান মার্কেট।

আস্তে আস্তে তা গ্রা;স করে ফে’লেছে পুরো এলাকা। ইতিমধ্যে সামাজিক মাধ্যমে ভা;ইরাল সেই ভিডিও ও ছবি।

ঐ ভিডিও ফু’টেজে দেখা গেছে, পুরো মার্কেট চত্বরটাই চলে গিয়েছে আ;গু’নের গ্রা;সে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্র;শাসনের তরফে জানানো হয়েছে, ঘ’টনাস্থলে পৌঁছেছে বি’শাল দ;ম’ক’ল বা;হি’নী।

আ;গু’ন নে;ভানোর প্রচেষ্টা চলছে। উ;ক্ত ঘ’টনায় কেউ আ;ট’কে রয়েছেন বা মা;রা গিয়েছেন কি না তা এখনও জানা সম্ভব হয়নি।

অপরদিকে লেবাননের রাজধানী বৈরুতে বন্দরে ভ;য়া’ব’হ বি;স্ফো’র’ণে বি;প’র্য’স্থ লেবানন। ধা;মাকার জেরে ঘটা অ;গ্নি’কা’ণ্ডে প্রা;ণ’হা’নির পাশাপাশি পুড়ে ছা;ই হয়ে গিয়েছে বন্দরের গোদামগুলিতে মজুত রাখা হাজার হাজার টন খাদ্যশস্য।

প;রি’স্থি’তি যে কতটা খা;রা’প তা স্পষ্ট করে দেশটির অর্থমন্ত্রী রাউল নেহমে জানিয়েছেন, মাত্র ১ মাসের মতো শস্য রয়েছে সরকারের হাতে।

৬ আগস্ট বুধবার এক সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে লেবাননের অর্থমন্ত্রী জানান, দেশের জনগণের খাদ্য সু;র’ক্ষা নিশ্চিত করতে গেলে অন্তত ৩ মাসের শস্য মজুত রাখা হয়।

কিন্তু বি;স্ফো’র’ণে’র জেরে বন্দরের গোদামগুলিতে মজুত থাকা শস্যভাণ্ডার ন;ষ্ট হয়ে গিয়েছে। কো’নোমতে মাসখানেক চালানোর মতো খাবার রয়েছে লেবানন সরকারে কাছে।

লে’বাননের বৈরুতের ত্রিপোলি বন্দরের ডিরেক্টর আহমেদ তামের বলেন বৈরুতের বন্দরের গোদামগুলিতে ১২০০০০ টন খাদ্যশস্য মজুত র;ক্ষার ক্ষ;মতা রয়েছে।

ঐ বি;স্ফো’র’ণে’র সময় বন্দরে প্রায় ১৫০০০ টন গম মজুত ছিল যা পু;ড়ে সব শে;ষ হয়ে গিয়েছে।

স্ব;স্তি’র বিষয় অনেক ব্যবসায়ী আগেই মাল খা;লাস করে নেওয়ায় মাস খানেকের মতো বাজারে আটার জোগান রয়েছে।

এবং প্রায় ২৮০০ টন গম নিয়ে বন্দরে আসছে ৪ টি জাহাজ। তথ্যসূত্রঃ সংবাদ প্রতিদিন, আরব টাইমস